1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : raihan :
  3. [email protected] : sanowar :
  4. [email protected] : themesbazar :
সিলেটে ভোট জালিয়াতির অভিযোগে দুই রিটার্নিং কর্মকর্তা আটক - Prothom News
শুক্রবার, ২১ জানুয়ারী ২০২২, ০৭:৪১ পূর্বাহ্ন

সিলেটে ভোট জালিয়াতির অভিযোগে দুই রিটার্নিং কর্মকর্তা আটক

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ৫ জানুয়ারী, ২০২২
  • ৪২ বার
Print Friendly, PDF & Email

প্রথম নিউজ ডেস্ক:

সিলেটের জকিগঞ্জে ভোট জালিয়াতির অভিযোগে দুই রিটার্নিং কর্মকর্তাকে আটক করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় উপজেলার কাজলসার ইউনিয়নের ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে।

সিলেটের আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মো. ফয়ছল কাদির বুধবার (৫ জানুয়ারি) সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টার দিকে জাগো নিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, গ্রেফতার কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে এবং কাজলসার ইউনিয়নের ভোট গ্রহণ স্থগিত হয়েছে। পরবর্তীতে এ ইউনিয়নে নতুন করে ভোটগ্রহণ হবে।

গ্রেফতাররা হলেন- জকিগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আরিফুল হক। এর মধ্যে আরিফুল হক কাজলসারসহ দুটি এবং সাকিব তিনটি ইউনিয়নের রিটার্নিং কর্মকর্তার দায়িত্বে ছিলেন।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, জকিগঞ্জের কাজলসার ইউনিয়নের মরিচা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চারটি কেন্দ্রে উপজেলা নির্বাচন কার্যালয় থেকে ভোটার সংখ্যা অনুযায়ী মঙ্গলবার (৩ জানুয়ারি) প্রয়োজনীয় সংখ্যক ব্যালট পেপার পৌঁছানো হয়নি। বুধবার দুপুর আড়াইটার দিকে কাজলসার ইউনিয়নের মরিচা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ব্যালট পেপার শেষ হয়ে যায়। ফলে ভোট দিতে না পারায় ওই কেন্দ্রে ভোটার ও প্রার্থী সমর্থকদের মধ্যে ক্ষোভ দেখা দেয়। এতে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি সৃষ্টি হলে বিষয়টি গোয়েন্দা সংস্থার নজরে আসে।

এ সময় ইউনিয়নের রিটার্নিং কর্মকর্তার দায়িত্বে থাকা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আরিফুল হকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। তখন প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের আরিফুল হক জানান, তিনি নিজে প্রয়োজনীয় ব্যালট পেপার কেন্দ্রে নিয়ে যাচ্ছেন। এরপর রিটার্নিং কর্মকর্তা আরিফুল হক ব্যালট পেপার নিয়ে মরিচা ভোটকেন্দ্রে গেলে তার গাড়ি থেকে সিল মারা ৪০০ ব্যালট পেপার উদ্ধার করে পুলিশ। এ ব্যালটগুলোর মধ্যে নৌকা এবং আরও দুজন মহিলা ও পুরুষ সদস্য (মেম্বার) প্রার্থীর প্রতীকে সিল মারা ছিল।

এ অবস্থায় বিকেলে পুরো ইউনিয়নের ভোট স্থগিত করে প্রশাসন। এছাড়া অভিযুক্ত উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা সাদমান সাকিব ও রিটার্নিং কর্মকর্তা আরিফুল হককেও আটক করে পুলিশ।

অন্যদিকে কাজলসার ইউনিয়নের ডেমারগ্রাম জামেয়া হোসানিয়া ইসলামিয়া মাদরাসা কেন্দ্রে জালভোট দেওয়ার অভিযোগে কেন্দ্রে হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ সময় হামলাকারীরা একটি ভোট কক্ষের ব্যালটবক্স ভাঙচুর করে লুটের চেষ্টা চালায়। এ ঘটনার পর একে অপরকে দোষারোপ করে স্বতন্ত্র প্রার্থী অ্যাডভোকেট মোস্তাক আহমদ ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ছাত্রলীগ নেতা আশরাফুল আম্বিয়া। এ সময় উভয় প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকরা মুখোমুখি অবস্থান নিলে আশরাফুল আম্বিয়ার লোকজন মোস্তাকের ভাইসহ কর্মী সমর্থকদের মারধর করেন। বেলা আড়াইটার পর থেকে ওই কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ বন্ধ ছিল।

এ বিষয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী অ্যাডভোকেট মোস্তাক আহমদ অভিযোগ করে বলেন, ‘ডেমারগ্রাম জামেয়া হোসানিয়া ইসলামিয়া মাদ্রাসা কেন্দ্রটি স্বতন্ত্র প্রার্থী আশরাফুল আম্বিয়ার বাড়ির পাশে হওয়ায় তিনি জোরপূর্বকভাবে আমার ভোটার এবং এজেন্টদের মারধর করে কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়। এ ঘটনায় আমার ভাইসহ আমার বেশ কয়েকজন সমর্থক আহত হয়েছেন।’

স্বতন্ত্র প্রার্থী আশরাফুল আম্বিয়া অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘মোস্তাক আহমেদের অভিযোগ সঠিক নয়। তিনি নিজে কেন্দ্র দখলের চেষ্টা করেছেন।’

খবর পেয়ে সন্ধ্যায় ভোট স্থগিত হওয়া ইউনিয়ন পরিদর্শনে যান সিলেট জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলাম ও জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন।

এ বিষয়ে জানতে সন্ধ্যা পৌনে ৭টায় সিলেট জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিনের মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করা হলে ব্যস্ত পাওয়া গেছে।

নিউজটি শেয়ার করুন...

Comments are closed.

এ জাতীয় আরো খবর...

ফেসবুকে আমরা…

© All rights reserved © 2020, prothomnews.com.bd